প্রয়োজনে ফোন করুন:
+88 01978 334233

ভাষা পরিবর্তনঃ

Cart empty

কুষ্টিয়া জেলার কৃতি সন্তান, বিশিষ্ঠ নাট্য অভিনেতা এবং বীর মুক্তিযোদ্ধা শেখ মো: মহিউদ্দিন

কুষ্টিয়া জেলার কৃতি সন্তান, বিশিষ্ঠ নাট্য অভিনেতা এবং বীর মুক্তিযোদ্ধা শেখ মো: মহিউদ্দিন ( ১৯৫৫-২০১৫ ) সক্ষিপ্ত জীবনী। প্রকৃতির নিজস্ব নিয়মেই সময়ের ধেয়ে চলা, আর সময়ের অমোঘ গতির সাথে তাল মিলিয়ে ছুটে চলি আমরা। শরীর নিয়ে এই যে জীবন তরীর বেয়ে চলা মৃত্যুর সময়কালেই এসে ঘাটে ফেরে সে তরী। মাঝে বয়ে যায় সেই মানুষটির যাবতীয় জীবন কর্ম।

শেখ মো: মহিউদ্দিন, তিনি ছিলেন একজন কর্মপ্রাননায় উদ্যমী ব্যক্তিত্ব। একাধারে বিশিষ্ঠ তবলা বাদক, সঙ্গীতশিল্পী, সংগঠক, নাট্য নির্দেশক, সুরকার, গীতিকার, বিশিষ্ঠ নাট্য অভিনেতা এবং বীর মুক্তিযোদ্ধা।

মহিউদ্দিন ১৯৫৫ সালে কুষ্টিয়ায় জন্মগ্রহন করেন। বাবা মৃত: আমিনউদ্দিন শেখ পানি উন্নয়ন বোর্ডে চাকুরী করতেন। গৃহিণী মা মৃত: আনোয়ারা খাতুন প্রথম পুত্র সন্তানকে আদর করে খোকা বলেই ডাকতেন। দশ ভাই বোনের মধ্যে মহিউদ্দিন ছিলেন সকলের চেয়ে ভিন্ন। প্রথম জীবন কেটেছে তার কুষ্টিয়া জেলার থানাপাড়াতেই। স্বভাবে ছিলেন ডানপিটে। তবে শিল্পী মনোষ্কতা তার রন্ধ্রে বইতো ছোটবেলাতেই। তাই ছুটে যেত পাড়াগাঁয়ের যাত্রাপালায়। ঘরেই কখনও চিৎকার করে বলে উঠলো যাত্রার ডায়ালগ। পাশের বাড়ির সঙ্গীতমহলও তাঁকে ভীষন টানতো। ছোটবেলাতেই তবলা হাতে না পেলেও টেবিল, কিংবা হাড়ি বাজিয়ে তাল তুলতেন গানে। স্কুল জীবনে মেয়ে সেজে অভিনয়ও করেছেন। পরবর্তী জীবনে সক্রিয়ভাবে অভিনয় ও তবলা বাদনে তাকে নিয়মিত দেখা যায়। আরো পরে তিনি জেলা শিল্পকলা একাডেমী, কুষ্টিয়ার যুগ্ম সম্পাদক হন এবং বোধন থিয়েটারের অন্যতন ও অনন্যতম হয়ে উঠেন। দেশের বিভিন্ন জেলা এবং দেশের সীমানা পেরিয়ে অন্যান্য দেশেও তিনি সঙ্গীত ও নাট্যাঙ্গনে কৃতিত্বের পরিচয় দেন।

শেখ মো: মহিউদ্দিন ছিলেন সত্বায় বাঙালী, আত্মায় মানুষ আর মননে শিল্পী। তবে তার সবচেয়ে বড় পরিচয় ছিলো তিনি একজন বীর মুক্তিযোদ্ধা। ১৯৭১ সাল, তখন তিনি ছাত্র। ১৪ই এপ্রিল পাক হানাদার বাহিনী যখন কুষ্টিয়া দখল করে নেয় তখন তিনি রেললাইন ধরে পায়ে হেটে চুয়াডাঙ্গা যান এবং সেখান থেকে ট্রাকে মেহেরপুর এবং সেখান থেকে বর্ডার ক্রস করে মুক্তিযুদ্ধের জন্য উচ্চতর ডিগ্রি নিতে সোজা চলে যান ভারতের পশ্চিমবঙ্গের মাঝদিয়ার কৃষ্ণগঞ্জে। সেখানে কমিউনিস্ট নেতা কমরেড রওশন আলীর ক্যাম্পে কিছুদিন থাকার পর আরো উচ্চতর প্রশিক্ষনের জন্য আসামের তেজপুরের পাহাড়ী এলাকায়। প্রশিক্ষন শেষে ফিরে আসেন যুদ্ধক্ষেত্রে। তিনি ছিলেন দলের গার্নার। রাশিয়ান এল,এম,জি থাকতো তার কাঁধে। এরপর ভয়াল তীব্রতার মধ্য দিয়ে জীবন বাজি রেখে মাতৃভূমিকে স্বাধীন করার নেশায় মেতে ওঠেন তিনি। দেশ হয় স্বাধীন।

যুদ্ধ শেষে পুনরায় মেতে ওঠেন সঙ্গীত ও নাট্য চর্চায়। তিনি পৌরসভায় চাকুরী করলেও মন থাকতো নাট্যাঙ্গনে। তিনি দেশের স্বনামধন্য প্রচুর নাট্য নির্দেশক ও নাট্য অভিনেতার সাথে কাজ করেছেন। শেখ মহিউদ্দিনের বর্তমানে গুছিয়ে বলা কঠিন হলেও তিনিঃ-/p>

  • অনিমেষ আইচ।
  • সাইদুল আনাম টুটুল।

বিশিষ্ঠ অভিনেতাদের মধ্যে -

  • আবুল হায়াত।
  • দিলারা জামান।
  • হাসান ইমাম।
  • মোশাররফ করিম।
  • জাহিদ হাসান।
  • আজিজুল হাকিম।
  • তৃষা।
  • জয়া আহসান।
  • এ টি এম শামসুজ্জামান।
  • জয়ন্ত মুখার্জী।
  • বাবু।

বড় পর্দায় -

  • ওমর সানি।
  • মৌসুমি।
  • হুমায়ন ফরিদি।

সহ আরো অনেকের সাথে কাজ করেছেন।

শেখ মহিউদ্দিন একাধারে ধারাবাহিক নাটক, প্যাকেজ নাটক, টেলিফিল্ম এবং সিনেমায় অভিনয় করেছেন।

উল্লেখযোগ্য নাটক : পাঞ্জাবিওয়ালা, আঙ্গুরলতা, দ্বিচক্রযান, আধুলি, স্বপ্নদাহ, উচ্চ বংশের পাত্র চাই, দিদি, অপরিচিতা, গাইড, শিউলি ফুল, বায়ান্ন গলির এক গলি ইত্যাদি।

টেলিফিল্ম : কবি, ফাগুয়ার দিন।

সিনেমা : জিরো ডিগ্রি, মোল্লাবাড়ির বউ ইত্যাদি।

ব্যক্তি জীবনে খুব অদ্ভুত অন্য রকম মানুষ ছিলেন তিনি। খুব রাগী অথচ খুব হাস্যমুখী। আনন্দ হাসিতে মাতিয়ে রাখতেন কাছের মানুষগুলোকে।

২০১৫ সালে হঠাৎ - ই সুস্থ সবল মানুষটি অসুস্থ হয়ে পড়েন। ডাক্তারি চিকিৎসায় ধরা পড়ে মরনব্যাধি ক্যান্সার। অর্থবল, জনবল সকলের অপ্রতিরোধ্য বাঁচানোর প্রয়াস আর তার বেঁচে থাকার অসীম আকুতি। কিছুই তার ওপারে যাত্রার পথ রোধ করতে পারলো না। ১৭ই মে ২০১৫ রবিবার আনুমানিক রাত ০৮:০০ টায় তিনি সকলকে ছেড়ে চলে গেলেন। রেখে গেলেন শুধুই তার কর্মকান্ড ও অপার স্মৃতি.....................।

যেখানেই থাকুন, তিনি ভালো থাকুন, শেখ মো: মহিউদ্দিন পৃথিবীতে একটি অনন্য নাম হয়ে থাকুক।

ছবিঃ-



লিখেছেন :-
ড: সুমাইয়া খানম ঈভা।
প্রভাষক (বাংলা বিভাগ), রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়, রাজশাহী।

মন্তব্য

মানুষ এবং সমাজের ক্ষতিসাধন হয় এমন মন্তব্য হতে বিরত থাকুন।


নতুন তথ্য

কুষ্টিয়ার মোহিনী মিলের ঐতিহ্য নতুন রুপে ফিরে আসুক আগামী প্রজন্মের কাছে এক সময়ের এশিয়ার সর্ববৃহৎ ঐতিহ্যবাহী বস্ত্রকল কুষ্টিয়ার মোহিনী মিল আন্তর্জাতিক পর্যায়ে ব্যাপক...
ভাঙল কুষ্টিয়ায় বাউল সম্রাট ফকির লালন শাহ্‌ এর তিরোধান দিবসের ৩ দিনের অনুষ্ঠান কুষ্টিয়ার ছেউড়িয়ায় সাঙ্গ হলো বাউল সম্রাট ফকির লালন শাহ’র ১২৯তম তিরোধান দিবস অনুষ্ঠান। “বাড়ির কাছে...
লালনের আদর্শে আধুনিক দেশ ও সমাজ গড়ে তুলতে হবে জাতীয় সংসদ সদস্য ও বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুবউল আলম হানিফ বলেছেন, সবকিছুর...
লালন সাঁইজীর সঠিক দর্শন ছেড়ে অনেকেই এখন ভুল ব্যাখ্যা দিতে তৎপর ! আজ থেকে ১২৯ বছরের ব্যবধানে সেই সময়ের মরমী সাধক বাবা লালন সাঁইজীর সঠিক দর্শন, দিক নিদের্শনা,...
শাঁইজীর আখড়াবাড়ীতে মানুষ রতনের ভীড় “বাড়ির কাছে আরশিনগর, সেথা এক পড়শি বসত করে” এই স্লোগানে আজ বুধবার থেকে শুরু হচ্ছে ৩ দিনব্যাপী বাউল সম্রাট মরমী সাধক ফকির লালন...

নতুন তথ্য

কুষ্টিয়া জেলা পরিষদের ইতিহাস ১৮১৬ এবং ১৮১৯ সালের স্থানীয়ভাবে ফেরী ব্যবস্থাপনা ও রক্ষনাবেক্ষণ, সড়ক/ সেতু নির্মাণ ও মেরামতের জন্য বৃটিশ সরকার...
সাঁতারে বিশ্ব রেকর্ড সৃষ্টিকারী কানাই লাল শর্মা কানাই লাল শর্মা (জন্মঃ ৭ই নভেম্বর ১৯৩০ইং, মৃত্যুঃ ১৯শে আগস্ট ২০১৯ইং) কুষ্টিয়ার হাটস হরিপুর ইউনিয়নের শালদহ গ্রামে...
Photo credit: Najmul Islam - Golden Bangla বাংলাদেশের সব চাইতে বেশী সুখী মানুষের বসবাস এবং ১৩তম বড় শহর কুষ্টিয়া শহর। সকল ফসল উৎপাদনে সক্ষম কুষ্টিয়ার মানুষ। নদী-নালা,...
সংগীতশিল্পী খালিদ হোসেন খালিদ হোসেন (জন্মঃ- ৪ ডিসেম্বর ১৯৩৫ - মৃত্যুঃ- ২২ মে ২০১৯) ছিলেন একজন বাঙালি নজরুলগীতি শিল্পী এবং নজরুল গবেষক। তিনি নজরুলের ইসলামী গান...
হয়রত সোলাইমান শাহ্‌  চিশতী (রঃ) মাজার শরীফ আধ্যাত্মিক সাধক পুরুষ সোলাইমান শাহ। কুষ্টিয়ার ভেড়ামারা উপজেলার গোলাপ নগরে রয়েছে সোলাইমান শাহের...

Subscribe Our Newsletter

welcome to our newsletter subscription

প্রতিষ্ঠাতা এবং প্রকাশকঃ- সালেকউদ্দিন শেখ সুমন

Made in kushtia

Go to top