প্রয়োজনে ফোন করুন:
+88 01978 334233

ভাষা পরিবর্তনঃ

Cart empty

কুষ্টিয়া

কুষ্টিয়া জেলা বাংলাদেশের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের খুলনা বিভাগের একটি প্রশাসনিক অঞ্চল। পূর্বে কুষ্টিয়া নদীয়া জেলার (বর্তমানে ভারতের পশ্চিমবঙ্গে) অন্তর্ভুক্ত ছিল। ১৮৬৯ সালে কুষ্টিয়ায় একটি পৌরসভা প্রতিষ্ঠিত হয়। হ্যামিলটন'স গেজেট প্রথম কুষ্টিয়া শহরের কথা উল্লেখ করে।

Kushtia (Bengali: কুষ্টিয়া জেলা, Kushtia Jela also Kushtia Zila) is a district in the Khulna administrative division of western Bangladesh. Kushtia has existed as a separate district since the partition of India. Prior to that, Kushtia was a part of Nadia District under Bengal Province of British India. Kushtia was home of many famous people, especially authors and poets. Present day Kushtia is known for the Islamic University, Shilaidaha Kuthibari and Lalon's shrine.

মোঃ আব্দুল আওয়াল মিয়া - সমাজ সেবক ও শিক্ষানুরাগী

জনাব মোঃ আব্দুল আওয়াল মিয়া ১৯৪৫ সালের ২৬ জানুয়ারী কুষ্টিয়া জেলার পান্টিতে জন্মগ্রহন করেন। সম্ভ্রান্ত মুসলিম পরিবারের সন্তান জনাব আঃ আওয়ালের পিতা মরহুম আলহাজ্জ্ব আব্দুল জব্বার। সমাজ সেবক ও শিক্ষানুরাগী হিসেবে তিনি খ্যাত। তাদের পৈত্রিক নিবাস কুষ্টিয়া জেলার কুমারখালী উপজেলার কৃষ্ণপুর গ্রামে।

বিশিষ্ট রাজনীতিবিদ ও সমাজকর্মী – জনাব রাহাতুল্লাহ সরকার

১৮৯৮ সালে তৎকালীন নদীয়া বর্তমান কুষ্টিয়া জেলার দৌলতপুর থানার ফিলিপনগর ইসলামপুর গ্রামে সভ্রান্ত সরকার পরিবারে জন্ম গ্রহন করেন। তার পিতা জনাব জহির উদ্দিন সরকার, মাতা মোছাঃ রবেজান। তিনি এলাকার একজন ধার্মিক জনহিতশ্রী ব্যক্তি হিসেবে সুপরিচিত ছিলেন।

খোকসার পরিচয়

খোকসা বাংলাদেশের কুষ্টিয়া জেলার একটি ক্ষুদ্রতম থানা। ১৯৪৭ সালের পুর্বে বর্তমান খোকসা থানা ছিলো অবিভক্ত বাংলাদেশের প্রেসিডেন্সী বিভাগের অন্যতম নদীয়া জেলার কুষ্টিয়া মহকুমার অংশ। খোকসার যতদুর প্রাচীন ইতিহাস জানা যায়, তাতে করে দেখা যায়, নবাব মুর্শীদ কুলী খাঁর নবাবী আমলের শেষদিকে খোকসা ছিলো বর্তমান ঝিনাইদহ জেলার কালীগঞ্জ থানার নলডাঙ্গা জমিদারের অধীনে।

আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস

১৯৫২ সালের এই দিনে (৮ ফাল্গুন, ১৩৫৯) বাংলাকে পাকিস্তানের অন্যতম রাষ্ট্রভাষা করার দাবিতে আন্দোলনরত ছাত্রদের ওপর পুলিশের গুলিবর্ষণে কয়েকজন তরুণ শহীদ হন। একুশে ফেব্রুয়ারি বাংলাদেশের জনগণের গৌরবোজ্জ্বল একটি দিন। এটি শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস হিসাবেও সুপরিচিত। বাঙালি জনগণের ভাষা আন্দোলনের মর্মন্তুদ ও গৌরবোজ্জ্বল স্মৃতিবিজড়িত একটি দিন হিসেবে চিহ্নিত হয়ে আছে।

পরিবহন

Kushtia Transport

ঢাকা টু কুষ্টিয়া
কুষ্টিয়া মজমপুর এবং ঢাকা বিআরটিসি মার্কেট কল্যাণপুর কাউন্টার থেকে বাস ছেড়ে যায়।

গাড়ির নাম কুষ্টিয়া ঢাকা
এস বি সুপার ডিলাক্স
(SB SUPER DELUXE)
+8801716313086 +8801716279999
+8801746394846
হানিফ এন্টারপ্রাইজ
(HANIF ENTERPRISE)
+8801713 049570 +88029008498
+8801713049570
শ্যামলী পরিবহন
(Shyamoli Paribahan)
+8807171389
+8801711942709
+88029003331
+88028034275

টিকিট মূল্য নন এসি ৪৫০ টাকা এবং এসি বাস ১০০০ টাকা

অনলাইনে টিকিট কেনার জন্য কুইক পে এর সাহায্য নিতে নিচের লিঙ্কে ক্লিক করুনঃ-
QPAY

দৌলতদিয়া টু কুষ্টিয়া
কুষ্টিয়া বাস টার্মিনাল এবং দৌলতদিয়া বাস টার্মিনাল থেকে বাস ছেড়ে যায়।

গাড়ির নাম কুষ্টিয়া দৌলতদিয়া ভায়া কুমারখালি, খোকসা, রাজবাড়ী
পদ্মা গড়াই কুষ্টিয়া বাস টার্মিনাল দৌলতদিয়া বাস টার্মিনাল
লোকাল বাস কুষ্টিয়া বাস টার্মিনাল দৌলতদিয়া বাস টার্মিনাল

ছাড়িবার সময় প্রতিদিন ভোর পাচটা থেকে বিকাল ছয়টা। টিকিট মূল্য ১৫০ টাকা।

খুলনা টু কুষ্টিয়া
কুষ্টিয়া বাস টার্মিনাল এবং খুলনা বাস টার্মিনাল থেকে বাস ছেড়ে যায়।

গাড়ির নাম কুষ্টিয়া খুলনা ভায়া ঝিনাইদাহ, যশোর
পদ্মা গড়াই কুষ্টিয়া বাস টার্মিনাল খুলনা বাস টার্মিনাল
লোকাল বাস কুষ্টিয়া বাস টার্মিনাল খুলনা বাস টার্মিনাল

ছাড়িবার সময় প্রতিদিন ভোর পাচটা থেকে বিকাল ছয়টা।

মেহেরপুর টু কুষ্টিয়া
কুষ্টিয়া বাস টার্মিনাল এবং মেহেরপুর বাস টার্মিনাল থেকে বাস ছেড়ে যায়।

গাড়ির নাম কুষ্টিয়া মেহেরপুর ভায়া মিরপুর, বামুন্দি, গাংনি
মেহেরপুর এবং কুষ্টিয়া পরিবহণ মালিক সমিতি কুষ্টিয়া বাস টার্মিনাল মেহেরপুর বাস টার্মিনাল
লোকাল বাস কুষ্টিয়া বাস টার্মিনাল মেহেরপুর বাস টার্মিনাল

ছাড়িবার সময় প্রতিদিন ভোর পাচটা থেকে বিকাল ছয়টা।

চুয়াডাঙ্গা টু কুষ্টিয়া
কুষ্টিয়া বাস টার্মিনাল এবং চুয়াডাঙ্গা বাস টার্মিনাল থেকে বাস ছেড়ে যায়।

গাড়ির নাম কুষ্টিয়া চুয়াডাঙ্গা ভায়া আলমডাঙ্গা
চুয়াডাঙ্গা এবং কুষ্টিয়া পরিবহণ মালিক সমিতি কুষ্টিয়া বাস টার্মিনাল চুয়াডাঙ্গা বাস টার্মিনাল
লোকাল বাস কুষ্টিয়া বাস টার্মিনাল চুয়াডাঙ্গা বাস টার্মিনাল

ছাড়িবার সময় প্রতিদিন ভোর পাচটা থেকে বিকাল ছয়টা।

প্রাগপুর টু কুষ্টিয়া
কুষ্টিয়া বাস টার্মিনাল এবং প্রাগপুর বাস স্ট্যান্ড থেকে বাস ছেড়ে যায়।

গাড়ির নাম কুষ্টিয়া প্রাগপুর ভায়া ভেড়ামারা
কুষ্টিয়া পরিবহণ মালিক সমিতি কুষ্টিয়া বাস টার্মিনাল প্রাগপুর বাস স্ট্যান্ড
লোকাল বাস কুষ্টিয়া বাস টার্মিনাল প্রাগপুর বাস স্ট্যান্ড

ছাড়িবার সময় প্রতিদিন ভোর পাচটা থেকে বিকাল ছয়টা।

কুষ্টিয়া ট্রেন যোগাযোগঃ-

ট্রেন নং ট্রেন এর নাম কোর্ট ষ্টেশন বড় ষ্টেশন দৌলতদিয়া ভায়া কুমারখালি, খোকসা, কালুখালি, রাজবাড়ী বন্ধ
- - - - - -
ট্রেন নং ট্রেন এর নাম পোড়াদাহ জংশন হইতে ঢাকা ভায়া ঈশ্বরদী, সিরাজগঞ্জ, টাঙ্গাইল, গাজীপুর বন্ধ
৭২৫ সুন্দরবন এক্সপ্রেস ১১.১৮ সকাল ৫.৫০ বিকাল মঙ্গলবার
৭৬৩ চিত্রা এক্সপ্রেস ১২.১৭ দুপুর ৬.২০ বিকাল সোমবার
ট্রেন নং ট্রেন এর নাম ঢাকা ভায়া ঈশ্বরদী, সিরাজগঞ্জ, টাঙ্গাইল, গাজীপুর হইতে পোড়াদাহ জংশন বন্ধ
৭২৬ সুন্দরবন এক্সপ্রেস ৬.২০ সকাল দুপুর ১২ টার পর বুধবার
৭৬৪ চিত্রা এক্সপ্রেস ৭.০০ সন্ধ্যা রাত ১ টার পর সোমবার
ট্রেন নং ট্রেন এর নাম কোর্ট ষ্টেশন বড় ষ্টেশন খুলনা ভায়া চুয়াডাঙ্গা, যশোর বন্ধ
- - - - - -
ট্রেন নং ট্রেন এর নাম কোর্ট ষ্টেশন বড় ষ্টেশন রাজশাহী ভায়া ঈশ্বরদী বন্ধ
- - - - - -

BANGLADESH RAILWAY E-TICKETING SERVICE

পোড়াদহ ট্রেনের সময়সূচি

আকাশ পথ

ঢাকা থেকে যশোর বিমান বন্দর আসতে হবে। যশোর হতে সড়ক পথে কুষ্টিয়া আসতে হবে। প্রাইভেট বিমান হলে নামতে পারবেন যশোর এবং ঈশ্বরদী বিমান বন্দর। হেলিকপ্টার হলে কুষ্টিয়া পুলিশ লাইন, কুষ্টিয়া স্টেডিয়াম মাঠ, সরকারি কলেজ মাঠে নামতে পারবেন।

 

আন্তর্জাতিক যোগাযোগ

ভারতবর্ষ হতে কুষ্টিয়া খুব সহজে আসা যায়। ভারতের গেদে ষ্টেশন হতে অথবা দর্শনা গেদে বর্ডার চেকপোস্টের কাজ সমন্ন করে সি,এন,জি অথবা বাস যোগে সহজেই কুষ্টিয়া শহরে পৌঁছাতে পারবেন। সময় মাত্র দুই ঘন্টা লাগতে পারে। এছাড়া যশোর বেনাপোল কাস্টম হাউজ হয়ে খুব সহজে আসা যায় (বাস, টেম্পু এবং সিএনজির মাধ্যমে)। আরো সহজে ভারত হতে কুষ্টিয়ার মাটিতে নামতে মৈত্রী এক্সপ্রেস ট্রেনে করে পোড়াদাহ ষ্টেশন পা দিলেই পৌঁছে গেলেন কুষ্টিয়াতে।

{jcomments on}

খোকসার কালীর ইতিহাস - সৌজন্যে শ্রী রবীন্দ্র নাথ বিশ্বাস

কোন সুদুর অতীতে খোকসা এবং খোকসার কালী জন্মলাভ করেছিলো এবং একে অপরকে পরিচিত করতে করতে একদিন অভিন্ন হয়ে উঠেছিলো তা আজ নিরুপন করা সম্ভব নয়। তবে এ তথ্যানুসন্ধানে মানব-মনীষা যতদুর এগিয়েছে, তার থেকে খোকসা থানা এবং এই কালী পূজার একটা মোটামুটি ধারনা লাভ করা যেতে পারে। দীর্ঘদিন থেকেই খোকসা ঐতিহ্যবাহী সাংস্কৃতিক থানা। বিবিধ সাংস্কৃতিক প্রবাহ বহুবার এই থানার উপর দিয়ে বয়ে গেছে। ফলে খোকসা থানা বর্তমানে সভ্যতা ও সাংস্কৃতির চর্চার একটি পীঠস্থান।

মোহাম্মদ নুরুল হক - আজীবন সেবা ও শিক্ষা বিস্তারের কাজে নিয়োজিত ছিলেন

মোহাম্মদ নুরুল হক একজন সফল শিক্ষাবিদ ও জনসেবক হিসেবে পরিচিত। ১৭ই শ্রাবন ১৩২২ সাল (১লা আগষ্ট ১৯১৫ সাল ইং) বর্তমানে মেহেরপুর জেলার গাংনী থানার মোহাম্মদপুর গ্রামে এক সম্ভ্রান্ত পরিবারে জন্মগ্রহন করেন। তার পিতার নাম মুজিব উদ্দীন বিশ্বাস, মাতা মোছাঃ জিউজান নেসা।

খন্দকার লুৎফেল হক উচ্চাঙ্গ সঙ্গীতের একজন শ্রেষ্ঠ সাধক এবং উচ্চমানের শিল্পী

কুষ্টিয়ার আদি ও ঐতিহ্যবাহী পরিবারগুলোর মধ্যে খন্দকার লুৎফেল হকের পরিবার অন্যতম। খন্দকার লুৎফেল হক উচ্চাঙ্গ সঙ্গীতের একজন শ্রেষ্ঠ সাধক এবং উচ্চমানের শিল্পী। তিনি একজন সমাজ সেবক। গরীব ও মেধাবী ছাত্র-ছাত্রীদের লেখাপড়ার ভার তিনি নিজেই বহন করতেন এবং নিজ বাড়িতে থাকা খাওয়ার ব্যবস্থা করে দিতেন। তিনি একজন প্রগতিশীল চিন্তাধারার এবং মুক্ত মনের মানুষ ছিলেন। তিনি সাংস্কৃতিমনা মানুষদের খুবই ভালবাসতেন এবং এবং নিজ সন্তানদের সেই ভাবেই গড়ে তুলেছেন।

Live Streaming Cricket

Live Streaming Cricket

ক্রিকেট বর্তমানে বাংলাদেশের প্রাণ তথা আমাদের। ক্রিকেট এর সব খেলা দেখতে চোখ রাখুন আমাদের এই লিঙ্কে। দেখতে কোন সমস্যা হলে কমেন্ট করুন, নিচের মন্তব্য অপশনে। কুষ্টিয়াশহর.কম (kushtiatown.com) এর সাথে থাকুন সবসময়।

মীর আনিসুজ্জামান রোটারী ক্লাব অব আগ্রাবাদের প্রতিষ্ঠাতা সদস্য

মীর আনিসুজ্জামান ১৯৪৭ সালের ১৭ই মার্চ কুষ্টিয়ার জগতি ইউনিয়নের বটতৈলের মীর বাড়ীতে জন্ম গ্রহন করেন। ১৯৫২ সালে মীর আনিসুজ্জামানের প্রাইমারী স্কুলে প্রথম শিক্ষা জীবন শুরু করেন। ১৯৫৭ সালে রংপুরের কারমাইকেল স্কুলে এবং ১৯৫৮ হইতে ১৯৬৪ সাল পর্যন্ত ওয়েষ্ট এন্ড হাই স্কুল আজীমপুর, ঢাকা থেকে মাধ্যমিক পরীক্ষায় উত্তীর্ন হন। ১৯৬৭ সালে ঢাকা জগন্নাথ কলেজ থেকে উচ্চ মাধ্যমিক এবং ১৯৭০ সালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বি,কম পাশ করেন। ১৯৭৫ সালে আর,এফ,ডি-জি,কিউ লিঃ সেরী এবং ১৯৮৯ সালে ডানলপ বিউফোর্ট লিঃ ইংল্যান্ড থেকে সুমদ্রগামী জাহাজের সেফটি ইকুইপমেন্ট এর উপর ইন্সেপেকশন এবং সার্ভিসিং এর প্রশিক্ষন গ্রহন করেন।

আত্ননিবেদনের সুর – ডক্টর মুহম্মদ শহীদুল্লাহ

লালন শাহের কাব্যে আত্ননিবেদনের সুর

মানুষের মধ্যে কতকগুলি ভাব আছে, যার কারণ খুঁজে পাওয়া যায় না। যেমন সৌন্দর্যবোধ। পৃথিবীতে সভ্য, অসভ্য, অর্ধসভ্য সকল জাতির মধ্যে এই সৌন্দর্যবোধ বিদ্যমান আছে।

খন্দকার আব্দুল ওয়াহেদ - একজন সংগ্রামী জননেতা ছিলেন

পুর্ব পুরুষ নদীয়া বেথুয়া ডহরী থেকে আসেন। মহম্মদ শাহী পরগনার মালিক ছিলেন, গউস বিলা পূর্বের নাম বর্তমান নাম ঘোষবিলা। কামেল ব্যক্তি দুই ভাই একজন বাগু দেওয়ান। উনার মাজার আলামপুর, অপর জনের মাজার ঘোষ বিলাতে তার নাম ফয়েজ উদ্দিন।

মহাত্মা লালন ফকীর - হিতকরী পাক্ষিক কুষ্টিয়া

১৫ কার্ত্তিক ১২৯৭/ ৩১ অক্টোবর ১৮৯০

লালন ফকীরের নাম এ অঞ্চলে কাহারও শুনিতে বাকী নাই। শুধু এ অঞ্চলে কেন, পূর্বে চট্রগ্রাম, উত্তরে রংপুর, দক্ষিণে যশোর এবং পশ্চিমে অনেকদূর পযন্ত বঙ্গদেশের ভিন্ন ভিন্ন স্থানে বহু সংখ্যক লোক এই লালন ফকীরের শিষ্য। শুনিতে পাই ইহার শিষ্য দশ হাজারের উপর। ইহাকে আমরা স্বচক্ষে দেখিয়াছি। আলাপ করিয়া বড়ই প্রীত হইয়াছি।

তরুন লেখক শফিকুল ইসলামের নাটক এর বই “সাঁইজির বাড়ি যাব”

শফিকুল ইসলামের নাটক “সাঁইজির বাড়ী যাব” পাঁচটি অংশ ও ১৫টি চরিত্রের মোট ৫৬ পৃষ্ঠার নাটকের বই যা সম্পাদনা করেছেন কুষ্টিয়ার ঔপন্যাসিক, প্রবন্ধকার, গীতিকার নাজির উদ্দিন আহমেদ। প্রকাশক – লেখক নিজেই শফিকুল ইসলাম, জয়নাবাদ মন্ডলপাড়া ( পুরাতন পাকার মাথা ), কুমারখালী, কুষ্টিয়া।

কমরেড রওশন আলি এবং কুষ্টিয়ার যুদ্ধ

রওশন আলি এই যুদ্ধে ও আগামী পরিকল্পনা নিয়ে নিজ দলের মধ্যে আলোচনা শুরু করেন। তিনি সবাইকে নিরাপদ স্থানে সরে যাবার পরামর্শ দেন, কিন্তু তিনি শহরেই থেকে যান। ১৫ দিন শত্রুমুক্ত থাকার পর ১৪ এপ্রিল পাক সেনারা ধবংসযজ্ঞ, হত্যাকান্ড চালাতে চালাতে শহর পুনঃদখল করে। এরই মধ্যে রওশন আলি সীমান্ত পাড়ি দিয়ে পশ্চিম বাংলায় চলে যান। সেখানে তার দীর্ঘদিনের রাজনৈতিক বন্ধুদের সাথে অনেক আলাপ আলোচনা হয়। তিনি নদীয়া জেলার কৃষ্ণনগরে এসে বাংলাদেশ থেকে আসা যুবকদের একত্রিত করে মুক্তিযুদ্ধে যাবার জন্যে সশস্ত্র প্রশিক্ষনের ব্যবস্থা করেন।

কমরেড রওশন আলি ছিলেন একজন শ্রমিক নেতা

১৯৪৮ সালে রওশন আলি আত্মগোপন করতে বাধ্য হন। তখন থেকে তিনি ঢাকায় অবস্থান করে দলের কাজ করতে থাকেন। এসময় বাম হটকারী লাইন গ্রহন করার কারনে পার্টিতে মতভেদ দেখা দেয়। তখন ৪৯ সালে পার্টির সিদ্ধান্তক্রমে কমরেড শেখ রওশন আলিকে সম্পাদক করে তিন সদস্যের প্রাদেশিক কমিটি গঠিত হয়। তার সাথে ছিলেন আলতাফ আলী ও আব্দুল বারী। পরে রওশন আলি গ্রেফতার হলে দলের দায়িত্ব পান আলতাফ আলী।

কমরেড রওশন আলির রাজনৈতিক জীবন

শেখ রওশন আলির ব্যক্তি জীবনের চাইতে তার রাজনৈতিক জীবনটাই মূলত মূখ্য। একজন রাজনীতিক কোন পর্যায়ে গিয়ে পৌছালে তার ব্যক্তিজীবন ম্লান হয়ে যায় রাজনৈতিক জীবনের কাছে তা তাকে পর্যালোচনা করলেই বোঝা যায়। তার নিজের জীবনের জন্য কোন অংশই ছিলো না, তার সবটুকুই দেশ, জাতি এবং নির্যাতিত, নিষ্পোষিত, নিপীড়িত, শোষিত জনগোষ্ঠির জন্য নিবেদিত।

কমরেড রওশন আলি – সৌজন্যে সনৎ নন্দী

কমরেড রওশন আলি পৃথিবীতে কিছু কিছু মানুষের জন্ম হয় যারা নিজেদের ভাগ্য পরিবর্তনের চাইতে সাধারন খেটে খাওয়া শ্রমজীবী মানুষের মঙ্গলের জন্য জীবন উৎসর্গ করে থাকেন। জদিও জগৎ সংসারে এসব মহৎ ব্যক্তিদের সংখ্যা খুবই নগন্য, এসব ক্ষনজন্মা মানুষের আবির্ভাব আমদের সমাজে খুবি দুর্লভ।

আলহাজ্ব কে এম আব্দুল খালেক চন্টু

খাতের আলী কলেজ ও এইচএন উচ্চ বিদ্যালয় এর প্রতিষ্ঠাতা

আলহাজ্ব কেএম আব্দুল খালেক চন্টু বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল [বিএনপি] মনোনীত প্রার্থী হিসাবে ১৯৯১ এর জাতীয় সংসদ, কুষ্টিয়া ৩ আসনে নির্বাচিত সংসদ সদস্য।

ডঃ আবুল আহসান চৌধুরী

কবি, সাহিত্যিক, প্রবন্ধকার, গবেষক, শিক্ষাবিদ

কবি, সাহিত্যিক, প্রবন্ধকার, গবেষক, শিক্ষাবিদ ডঃ আবুল আহসান চৌধুরী ১৯৫৩ সালের ১৩ জানুয়ারী কুষ্টিয়ার মজমপুরে নিজ পিত্রালয়ে জন্মগ্রহন করেন। পিতা ফজলুল বারী চৌধুরী, মাতা সালেহা খাতুন।

পাতা 10 এর 17

নতুন তথ্য

সৃষ্টিশীল কারিগর কবি ও স্থপতি রবিউল হুসাইন রবিউল হুসাইন (জন্মঃ ৩১ জানুয়ারি ১৯৪৩ সাল - মৃত্যুঃ ২৬ নভেম্বর, ২০১৯ সাল ইংরেজি) সৃষ্টিশীল কারিগর তিনি একাধারে কবি, স্থপতি,...
বাংলা গানের অমর গীতিকবি এবং সংগীতস্বাতী -  মাসুদ করিম মাসুদ করিম ( জন্মঃ ১৭ ফেব্রুয়ারি, ১৯৩৬ - মৃত্যুঃ- ১৬ নভেম্বর, ১৯৯৬) ছিলেন একজন খ্যাতিমান...
কুষ্টিয়ার মোহিনী মিলের ঐতিহ্য নতুন রুপে ফিরে আসুক আগামী প্রজন্মের কাছে এক সময়ের এশিয়ার সর্ববৃহৎ ঐতিহ্যবাহী বস্ত্রকল কুষ্টিয়ার মোহিনী মিল আন্তর্জাতিক পর্যায়ে ব্যাপক...
ভাঙল কুষ্টিয়ায় বাউল সম্রাট ফকির লালন শাহ্‌ এর তিরোধান দিবসের ৩ দিনের অনুষ্ঠান কুষ্টিয়ার ছেউড়িয়ায় সাঙ্গ হলো বাউল সম্রাট ফকির লালন শাহ’র ১২৯তম তিরোধান দিবস অনুষ্ঠান। “বাড়ির কাছে...
লালনের আদর্শে আধুনিক দেশ ও সমাজ গড়ে তুলতে হবে জাতীয় সংসদ সদস্য ও বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুবউল আলম হানিফ বলেছেন, সবকিছুর...

নতুন লালন গীতি

সোনার মান গেল রে ভাই বেঙ্গা এক পিতলের কাছে সোনার মান গেল রে ভাই বেঙ্গা এক পিতলের কাছে। শাল পটকের কপালের ফের কুষ্টার বোনাতে দেশ জুড়েছে।।
আমার ঘরের চাবি পরের হাতে কেমনে খুলিয়া সে ধন দেখবো চক্ষেতে আমার ঘরের চাবি পরেরই হাতে। কেমনে খুলিয়া সে ধন দেখবো চক্ষেতে।।
দেখ না মন ঝকমারি এই দুনিয়াদারি পরিয়ে কোপনি ধব্জা মজা উড়ালো ফকিরি দেখ না মন ঝাকমারি এই দুনিয়াদারি। পরিয়ে কোপনি ধব্জা মজা উড়ালো ফকিরি।।
পাখি কখন জানি উড়ে যায় একটা বদ হাওয়া লেগে খাঁচায় পাখি কখন জানি উড়ে যায় একটা বদ হাওয়া লেগে খাঁচায়।।
মন বিবাগী বাগ মানে না রে যাতে অপমৃত্যু হবে তাই সদায় করে মন বিবাগী বাগ মানে না রে। যাতে অপমৃত্যু হবে তাই সদায় করে।। কিসে হবে আমার ভজন সাধন মন...

Subscribe Our Newsletter

welcome to our newsletter subscription

প্রতিষ্ঠাতা এবং প্রকাশকঃ- সালেকউদ্দিন শেখ সুমন

Made in kushtia

Go to top