fbpx
প্রয়োজনে ফোন করুন:
+88 01978 334233

ভাষা পরিবর্তনঃ

খালি কার্ট

বৃহত্তর কুষ্টিয়ার ধর্মচারণ

ভৌগলিক অবস্থানগত কারণে বৃহত্তর কুষ্টিয়ার মানুষ অসাম্প্রদায়িক চেতনাসমৃদ্ধ। যে কারণে এ অঞ্চলে মুসলিম-হিন্দু খ্রিষ্টান যে যার ধর্ম চারণ সহজভাবে পালন করতে সক্ষম হয়েছে। কুষ্টিয়া জেলার জন্ম ১৯৪৭ সালে দেশ ভাগের পর। দেশ ভাগের পূর্বে বর্তমান বৃহত্তর কুষ্টিয়া জেলা কুষ্টিয়া সদর, চুয়াডাঙ্গা ও মেহেরপুর মহকুমা ছিল অবিভক্ত নদীয়া জেলার অংশ। নদীয়া নবদ্বীপ ছিল হিন্দুধর্ম ও শাস্ত্রাদি চর্চার প্রধান ক্ষেত্র। ত্রয়োদশ শতকের প্রারম্ভে বখতিয়ার খলজির নদীয়া বিজয়ের ফলে বাংলাদেশে মুসলিম শাসনের সুত্রপাত। নবদ্বীপে শ্রী চৈতন্যের আবির্ভাব ও বৈষ্ণব ধর্মমত প্রচার এ জেলা তথা বাংলার মুসলমানদের উপর যে বেশি প্রভাব ফেলেছিল তা অনস্বীকার্য। এ ছাড়া আউল-বাউল, সহজীয়া হযরতি-গোবরাট প্রভৃতি প্রায় পনেরটি উপধর্ম মতের জন্ম-বিকাশ ও সাধন ক্ষেত্র নদীয়া-নবদ্বীপ-কুষ্টিয়া অঞ্চল।

পঞ্জদশ শতকে আগত বিখ্যাত আউলিয়া হযরত খান জাহান আলী, কুষ্টিয়ার উপর দিয়েই যশোরে গিয়েছিলেন। তিনি এ জেলায় ব্যাপকভাবে ইসলাম প্রচার করেন।

বৃহত্তর কুষ্টিয়া জেলায় ইসলাম প্রচারের কালনির্ণয় করা দুঃসাধ্য। চুয়াডাঙ্গার আলমডাঙ্গা উপজেলার ঘোলদাড়ি গ্রামে হযরত খায়রুল বাশার ওমজের মাজারের পাশে একটি পুরাতন মসজিদ আছে। এই মসজিদ সন্মন্ধে বলা হয়ঃ বাংলা ৪১৩ সালে পীর খায়রুল বাশার ওমজ প্রতিষ্ঠা করেন।

ঘোলদারি গ্রামে অবস্থিত মসজিদটি বৃহত্তর কুষ্টিয়া জেলার প্রথম মসজিদ বলে বিবেচিত।

দরবেশ মেহের আলী শাহ্‌ ওরফে শাহ্‌ ভালাই (প্রকৃত নামঃ শায়খ সৈয়দ মুহম্মদ জহির উদ্দিন, জন্ম ১৮০৬ সনে ইয়েমেনে) মেহেরপুরের সমগ্র অঞ্চলে সর্বপ্রথম পত্তন (ভিত্তি) করেন।

তিনি চুয়াডাঙ্গা এবং পশ্চিমবাংলার রানাঘাট, করিমপুর, মুর্শিদাবাদ ও নদীয়া অঞ্চলেও ইসলাম প্রচার করেছেন।

১৮৩০ সালের দিকে পাদ্রি রেভারেন্ড এম হোসেন চুয়াডাঙ্গার দামুড়হুদা থানার কার্পাসডাঙ্গা এলাকায় খ্রিষ্টধর্ম প্রচার শুরু করেন। ১৮৩৮ সালের দিকে দুর্ভিক্ষ দেখা দিলে খ্রিষ্টান মিশনারিরা শুধুমাত্র খাবারের বিনিময়ে বহু দরিদ্র হিন্দু মুসলমানকে খ্রিষ্টধর্মে দীক্ষিত করতে সক্ষম হন।

১৮৬০ সালে কুষ্টিয়ায় মহকুমা প্রতিষ্ঠিত হলে বাংলা ১৩০৫ সনে একজন হিন্দু মুন্সেফের চেষ্টায় ফৌজদারি কোটের নিকট একটি ছোট আকারের মসজিদ প্রতিষ্ঠিত হয়। মীর মশাররফ হোসেন পাংশা থেকে প্রকাশিত ইয়াকুব আলী চৌধুরী সম্পাদিত “কোহিনুর” প্রত্রিকায় (১৩০৫) “সৎ প্রসঙ্গ” শিরোনামে সংবাদটি প্রকাশ করেছিলেন।

এই মসজিদটি পূর্বে কোর্ট মসজিদ এবং বর্তমানে বড় মসজিদ নামে পরিচিত। তবে যতদুর জানা যায় কুঠিপাড়ার মসজিদটিই কুষ্টিয়া শহরের প্রথম মসজিদ। বাংলা ১২৯৫ সালের দিকে পাবনা নিবাসী কোটের একজন মুসলমান নাজির একটি খড়ের ঘরে প্রথম মজসিদ নির্মাণ করেন।

কুষ্টিয়া শহর প্রথমে ছিল একটি দ্বীপাঞ্চল, এর প্রাচীন নাম ছিল কাকদ্বীপ। সেন রাজা বল্লাল সেন নদীয়ার নবদ্বীপে রাজধানী নির্মাণ করে হিন্দুধর্মের সংস্কার করেন। পালরাজাদের নিম্নবঙ্গের রাজধানী ছিল নবদ্বীপ নিকটস্থ সুবর্ণবিহারে।

এ জেলার হিন্দুদের মধ্যে শক্তি শৈব, বৈষ্ণব, কর্তাভজা, বললাম ভজা ইত্যাদি বেশি। দুর্গা, সরস্বতী, কালী প্রভৃতি পূজা জাঁকজমকের সাথে পালিত হয়।

নিম্নশ্রেণির হিন্দুদের মধ্যে পূজা বাদে গাজন, মনসা, শীতলা প্রভৃতি লৌকিক দেব-দেবীর পূজা হয়। কুষ্টিয়ার সকল মন্দিরেই রাঁধা-কৃষ্ণের বিগ্রহ পুজিত হয়। দেশ বিভাগের পূর্বে প্রায় সকল গ্রামেই বৈষ্ণব-বৈষ্ণবীদের আখড়া ছিল।

বৃহত্তর কুষ্টিয়ার মসজিদ মন্দির গির্জা - আব্দুল্লাহ সাঈদ

মন্তব্য


  • কুষ্টিয়া পৌরসভার ১৫০তম বর্ষপূর্তি উদযাপন

    কুষ্টিয়া পৌরসভার ১৫০তম বর্ষপূর্তি উদযাপন

  • কুষ্টিয়া পৌরসভার ১৫০তম বর্ষপূর্তি উদযাপন

    কুষ্টিয়া পৌরসভার ১৫০তম বর্ষপূর্তি উদযাপন

  • কুষ্টিয়া পৌরসভার ১৫০তম বর্ষপূর্তি উদযাপন

    কুষ্টিয়া পৌরসভার ১৫০তম বর্ষপূর্তি উদযাপন

  • পহেলা বৈশাখ ১৪২৫, কুষ্টিয়া পৌরসভা
  • পহেলা বৈশাখ ১৪২৫, মিরপুর কুষ্টিয়া
  • লাঠিখেলা উৎসব ২০১৭

    লাঠিখেলা উৎসব ২০১৭

  • লাঠিখেলা উৎসব ২০১৭

    লাঠিখেলা উৎসব ২০১৭

  • লাঠিখেলা উৎসব ২০১৭

    লাঠিখেলা উৎসব ২০১৭

  • লাঠিখেলা উৎসব ২০১৭

    লাঠিখেলা উৎসব ২০১৭

  • লাঠিখেলা উৎসব ২০১৭

    লাঠিখেলা উৎসব ২০১৭

  • কুষ্টিয়ার ঐতিহ্যবাহী নৌকা বাইচ

    কুষ্টিয়ার ঐতিহ্যবাহী নৌকা বাইচ

  • ফকির লালন শাঁইজীর স্মরণে দোলপূর্ণিমা উৎসব ২০১৬

    ফকির লালন শাঁইজীর স্মরণে দোলপূর্ণিমা উৎসব ২০১৬

  • ফকির লালন শাঁইজীর স্মরণে দোলপূর্ণিমা উৎসব ২০১৬

    ফকির লালন শাঁইজীর স্মরণে দোলপূর্ণিমা উৎসব ২০১৬

  • ফকির লালন শাঁইজীর স্মরণে দোলপূর্ণিমা উৎসব ২০১৬

    ফকির লালন শাঁইজীর স্মরণে দোলপূর্ণিমা উৎসব ২০১৬

  • ফকির লালন শাঁইজীর স্মরণে দোলপূর্ণিমা উৎসব ২০১৬

    ফকির লালন শাঁইজীর স্মরণে দোলপূর্ণিমা উৎসব ২০১৬

  • ফকির লালন শাইজির ১২৫তম তিরোধান দিবস

    ফকির লালন শাইজির ১২৫তম তিরোধান দিবস

  • ফকির লালন শাইজির ১২৫তম তিরোধান দিবস

    ফকির লালন শাইজির ১২৫তম তিরোধান দিবস

  • ফকির লালন শাইজির ১২৫তম তিরোধান দিবস

    ফকির লালন শাইজির ১২৫তম তিরোধান দিবস

  • ফকির লালন শাইজির ১২৫তম তিরোধান দিবস

    ফকির লালন শাইজির ১২৫তম তিরোধান দিবস

  • ফকির লালন শাইজির ১২৫তম তিরোধান দিবস

    ফকির লালন শাইজির ১২৫তম তিরোধান দিবস

নতুন তথ্য

বাংলা ভাষা আন্দোলন বরাক উপত্যকা Barak Valley of Bangla Language Movement আসামের বরাক উপত্যকার বাংলা ভাষা আন্দোলন ছিল আসাম সরকারের অসমীয়া ভাষাকে...
আমের নামকরণের ইতিহাস আম (Mango) গ্রীষ্মমন্ডলীয় ও উপগ্রীষ্মমন্ডলীয় দেশগুলিতে ব্যাপকভাবে উৎপন্ন একটি ফল। Anacardiaceae গোত্রের...
হযরত মুহাম্মাদ (সাঃ) - মক্কা জীবন আরব জাতি (الشعب العربى وأقوامها) মধ্যপ্রাচ্যের মূল অধিবাসী হ’লেন আরব জাতি। সেকারণ একে আরব উপদ্বীপ (جزيرة العرب) বলা...
ঢেঁড়স ঢেঁড়শ (অন্য নাম ভেন্ডি) মালভেসি পরিবারের এক প্রকারের সপুষ্পক উদ্ভিদ। এটি তুলা, কোকো ও হিবিস্কাসের সাথে সম্পর্কিত। ঢেঁড়শ গাছের...
নবাব সলিমুল্লাহ শুক্রবার, 10 মে 2019
নবাব সলিমুল্লাহ নবাব সলিমুল্লাহ (জন্ম: ৭ই জুন ১৮৭১ - মৃত্যু: ১৬ই জানুয়ারি ১৯১৫) ঢাকার নবাব ছিলেন। তার পিতা নবাব...
কাল্পনিক নৌকা আদম (আঃ) থেকে নূহ (আঃ) পর্যন্ত দশ শতাব্দীর ব্যবধান ছিল। যার শেষদিকে ক্রমবর্ধমান মানবকুলে শিরক ও...
ছবির গান রেকডিং এর সময় সুবীর নন্দী (জন্মঃ ১৯ নভেম্বর ১৯৫৩ মৃত্যুঃ ৭ মে ২০১৯) ছিলেন একজন বাংলাদেশী সঙ্গীতশিল্পী। তিনি মূলত চলচ্চিত্রের গানে কন্ঠ দিয়ে খ্যাতি অর্জন করেন।...
বেল খাওয়ার ১৫টি উপকারিতা জেনে নিন আর থাকুন ফিট বেলের পুষ্টিগুণ ও উপকারিতা বেল কিন্তু সেই প্রাচীন সময় থেকে আয়ুর্বেদ শাস্ত্রে উপকারী ফল হিসেবে...
রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের উক্তি আমাদের জীবনের প্রেক্ষাপটে রোজ আমরা পাই জীবনের রূপরেখা, এবং তাকেই তুলির টানে রাঙিয়ে চলায় আমাদের...
রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের সাহিত্যজীবন উপন্যাস: রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের উপন্যাস বাংলা ভাষায় তাঁর অন্যতম জনপ্রিয় সাহিত্যকর্ম। ১৮৮৩ থেকে ১৯৩৪ সালের মধ্যে রবীন্দ্রনাথ মোট বারোটি উপন্যাস রচনা করেছিলেন।...

Subscribe Our Newsletter

welcome to our newsletter subscription

প্রতিষ্ঠাতা এবং প্রকাশকঃ- সালেকউদ্দিন শেখ সুমন

Made in kushtia

Go to top